দাঁতে ব্যথা দূর করার সহজ উপায় | ১০০% প্রমাণিত টিপস

দাঁতে ব্যথা
ad

মানবদেহে কতগুলো ব্যথাজনিত জটিলতা রয়েছে দাঁতে ব্যথা যে তার মধ্যে অন্যতম সেটা পৃথিবীর কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। বিশেষজ্ঞরা দাঁতে ব্যথার মেইন কারণ হিসেবে টেবিটি কিংবা দাতে ছিদ্র, দাঁতে ইনফেকশন, উন্মুক্ত দাঁতের মূল, দাঁতের গোড়া আলগা হয়ে যাওয়া, মাড়ির সমস্যা, চোয়ালের জয়েন্টে সমস্যা, নতুন দাঁত গজানোর ইত্যাদির জটিলতায় করেছেন।

আর এই সকল জটিলতার পিছনে মূলত দাঁতের সঠিক পরিচর্যার অভাবকেই দায়ী করা হয়। বন্ধুর একটা বিষয় লক্ষ করে দেখবেন মূলত দাঁতে ব্যথার তীব্রতা রাতেই প্রকট হয়, আর ম্যাক্সিমাম ডেন্টিস্ট চিকিৎসার জন্য রাতে বসে না। তো এই অসহ্য যন্ত্রণা টা আপনাকে জাতের আকবর সহ্য করতে না হয় তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করব অসহ্য যন্ত্রণা থেকে মুক্তির সহজ কিছু কৌশল।

বন্ধুরা আমি আপনাদের সাথে আর্টিকেল এর মাধ্যমে চারটি পদ্ধতি শেয়ার করতে যাচ্ছি। আপনারা আপনাদের সুবিধামতো যেকোনো একটি পদ্ধতি সিলেক্ট করে আপনার আপনার দাঁতের পেইন দূর করার জন্য এপ্লাই করবেন।

দাঁতে ব্যথা দূর করার ১ম পদ্ধতি: লবঙ্গ

হ্যাঁ বন্ধুরা, লবঙ্গ দাঁতে ব্যথা দূর করার একটি কার্যকরী উপাদান। কারণ এই লবঙ্গে আছে এন্ট্রি ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি, এন্টি অক্সাইড, অনুভূতি নাশক উপাদান, ইউজে নাম ছাড়া আরও কত কি। যা আপনার দাঁতে ব্যথা দূর করার জন্য বেশ কার্যকরী উপাধান পালন করবে।

  • লবঙ্গ এর ব্যবহার: দুটো লবঙ্গ কে শিলপাটায় গুঁড়ো করে তার মধ্যে সামান্য পরিমাণে পানি অথবা নারিকেল তৈল অথবা অলিভ অয়েল অ্যাড করে পেস্ট বানিয়ে নিন। তারপরে এই পেস্ট আপনার দাঁতের ব্যথার স্থানে লাগিয়ে দিন অথবা দাঁতের মধ্যে হোল থাকলে সেই হলের মধ্যে ঢুকিয়ে রাখুন। এক্ষেত্রে আপনার দাঁতের ব্যথা খুবই দ্রুত কমে যাবে এবং আপনি স্বস্তি উপলব্ধি করতে পারবেন। এটা খুবই সহজ একটি পদ্ধতি এটা যে কেউ চাইলেই করতে পারেন।

আরো হেলথ রিলিটেড আর্টিকেল পড়ুন-

দাঁতে ব্যথা দূর করার ২য় পদ্ধতি: লবণ ও মরিচ

বন্ধুরা আপনার দাঁতে ব্যথা যদি তীব্রতর অথবা পর্যাপ্ত ব্যথা হয়ে থাকে তাহলে এই লবণ ও মরিচ আপনার তীব্র দাঁতের ব্যাথা দূর করার জন্য একদম পারফেক্ট। কারণ লবণে থাকা শরীয়ত আপনার দাঁতে ব্যথার অনুভূতিকে মস্তিষ্কে যেতে আটকে দিবে আর মরিচে থাকা ক্যালসিয়াম আপনার দাঁতের পেইড কমিয়ে দিবে। তাছাড়া এর দুটো উপাদানই সেনসিটিভ দাঁতের জন্য বেশ উপকারী। কারন এরা উভয়েই অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল anti-inflammatory অ্যানালজেসিক।

  • লবণ ও মরিচের ব্যবহার: বন্ধুরা সামান্য পরিমাণে মরিচের গুঁড়ো নিন তবে গোলমরিচের গুড়ো হলে সব চাইতে বেশি ভালো হয়, যেই পরিমান মরিচের গুঁড়ো নিবেন ঠিক সেই পরিমাণ লবণ নিন। এর পরিবর্তে হতে পারে চায়ের চামচের এক চামচ। লবণ এবং মরিচ নেয়ার পরে এটার মধ্যে সামান্য পরিমাণ পানি দিয়ে একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। এই পেস্ট আপনার দাঁতের ব্যথার স্থানে লাগিয়ে দিন অথবা দাতে হল থাকলে সেখানে ঢুকিয়ে রাখুন, দেখবেন নিমিষেই আপনার দাঁতের ব্যথা উড়ে যাবে আপনি স্বস্তির দেখা পাবেন।

আরো সুস্বাস্থ থাকতে এই গুলো পড়ুন- এখানে ক্লিক করুন

দাঁতে ব্যথা দূর করার ৩য় পদ্ধতি: পেয়ারা পাতা

হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি চাইলে পেয়ারা পাতা দিয়ে খুব সহজেই আপনি আপনার দাঁতের ব্যথা দূর করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে পাশ থেকে ছয়টা পেয়ারা পাতা সংগ্রহ করে হাফ লিটার পানির ভিতর দিয়ে পানি তাকে ভাল করে ফোটান তারপরে পানিটা ঠান্ডা হলে তার মধ্যে 1 টেবিল চামচ লবণ দিয়ে আপনি পানিতে দিয়ে বারবার কুলি করুন। ততক্ষণ কুলি করুন যতক্ষণ আপনার দাঁতের ব্যথা কন্ট্রোলে না আসে। আপনি এটাও করতে পারেন একটা কাঁচের তাজা পেয়ারা পাতা আপনার দাঁতের ব্যথায় স্থান থেকেই চাবানোর ট্রাই করুন।

বন্ধুরা যাদের দাঁতে ব্যথা তুলনামূলকভাবে কম কিন্তু দাঁতে ব্যথা অবিরাম সবসময়ই কন্টিনিউ থাকে তারা এই পদ্ধতি এপ্লাই করতে পারেন। ভালো ফল পেতে দিনে দুই থেকে তিনবার এই পদ্ধতি এপ্লাই করুন।

দাঁতে ব্যথা দূর করার ৪র্থ পদ্ধতি: রসুন

বন্ধুরা রসুন হল দাঁতে ব্যথা দূর করার একটি কার্যকারী উপাদানের নাম, আপনারা চাইলে এই রসুন দিয়ে খুব সহজে আপনার দাঁতে ব্যথা দূর করতে পারবেন। কারণ রয়েছে এন্টিবায়োটিক প্রচুর পরিমাণে বিশেষ গুণ যা আপনার দাঁতে ব্যথা দূর করার জন্য বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে।

  • রসুনের ব্যবহার: বন্ধুরা এক থেকে দুই কোয়া রসুন কে সুন্দর মত থেঁতলে নিন এর মধ্যে সামান্য পরিমাণে লবণ অ্যাড করে পেস্ট বানিয়ে নিন, এই পেস্ট আপনার দাঁতের ব্যথার স্থানে লাগান অথবা দাতে হও থাকলে সেখানে ঢুকিয়ে রাখুন। দেখবে রেখেছে আপনি অনেক ভাল ফল পাবেন।

সর্বশেষ কথা:

যেহেতু আপনার দাঁতে ব্যথা সৃষ্টি হয়েছে সে ক্ষেত্রে এটা ছোট হোক কিংবা বড় হোক যেকোনো সমস্যা আপনার দাঁতের সৃষ্টি হয়েছে। তো এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই একজন ডেন্টিস্ট এর পরামর্শ নিতে হবে। কারণ ব্যথা দূর করা বড় কথা নয়, আপনার দাঁতের সমস্যাকে চিহ্নিত করে সেটা সমাধান করতে না পারলে আপনি আপনার মূল্যবান দাঁতকে চিরতরে হারিয়ে ফেলতে পারেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের আর্টিকেল আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন এবং আমাদের এই ধরনের আরও আর্টিকেল পেতে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন। সময় দিয়ে আমাদের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

https://www.youtube.com/watch?v=a7isQu9dhFI

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *