মোটা হতে চাইলে এই খাবারগুলো আপনার জন্য ১০০% কার্যকর

মোটা হতে চাই
ad

কি খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় আসলে এটা একটা চিন্তার বিষয়। যাদের রুগ্ন স্বাস্থ্য তাদের কাছে এই চিন্তাতো প্রচুর মাথায় ঘুরতেই থাকে। সারাদিন আমরা কত কিছুই তো খাই, কিন্তু সব ধরনের খাবার কি স্বাস্থ্য বৃদ্ধি করে? “অবশ্যই না!” বরং অনেক খাবার রয়েছে যা আমাদের ওজন কে কমিয়ে দেয়। প্রথমত মোটা হতে চাই লে উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার টা একটু বেশি করে খেতে হবে।

আমাদের এই আর্টিকেলের মধ্যে আজকে থাকবে যে বিষয়গুলো তা হচ্ছে-
  • কোন খাবারগুলো খেলে মোটা হতে পারবেন।
  • কোন স্পেশাল খাবারগুলো খাবেন।
  • দিনে কতবার খাবার খাবেন।
  • কোন নিয়মে খাবারগুলো খাবেন।

কোন ধরনের খাবার গুলো মোটা হওয়ার জন্য কার্যকর?

প্রথমেই ফ্যাট জাতীয় খাবার খান। একটু বেশি চকলেট, মাখন, দুধ, ডিম এগুলো একটু বেশি করে খেতে হবে। এসব খাবারে থাকা ফ্যাট ক্যালোরি ওজন বৃদ্ধির জন্য খুবই খুবই জরুরী। তবে মনে রাখবেন উচ্চরক্তচাপ থাকলে এ ধরনের খাবার গুলো আপনার শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার হালকা এক্সারসাইজ করা উচিত যাতে চর্বি অধিক মাত্রায় শরীরে তৈরি হতে না পারে।

এখানে খেতে পারেন আম ও দুধ। প্রত্যেকদিন এক থেকে দুটো করে পাকা আম খেতে পারেন। এবং এরপরে এক গ্লাস কুসুম গরম দুধ খেতে পারেন, আবার দিনে একবার আম এবং দুধ মিলিয়ে শেক বানিয়ে খেতে পারেন। এ খাবারগুলো খেলে মাস খানেকের মধ্যেই আপনার শরীরের পরিবর্তন আপনার চোখে পড়বে।

নিয়মিত খেতে পারেন কিশমিশ ও ডুমুর: কিশমিশ ও শুকনো ডুমুর ফল উচ্চ ক্যালোরি সম্পূর্ণ, ৬ টি শুকনো ডুমুর ফল এবং ৩০-গ্রাম কিশমিশ পানি অথবা দুধের সাথে সারারাত ভিজিয়ে রেখে সেই পানিসহ ফলগুলো দুইবারে খাবেন। এই উপাদানটি আপনাকে ২০-২৫ দিনের মধ্যে খুব ভালো একটা ফল দিবে।

খাদ্য তালিকায় যুক্ত করুন ঘি: ঘি এবং চিনির মিশ্রণ, ১ টেবিল চামচ ঘি এবং ১ টেবিল চামচ চিনি মিশিয়ে প্রতিবেলা খাবার আধাঘন্টা আগে খালি পেটে খেয়ে নিন। এটি একমাস খাবার পরেই লক্ষনীয় পরিবর্তন চোখে পড়বে।

খাবারে রাখুন আলো: প্রচুর শর্করা আছে আলুতে, তাই নিশ্চিত ভাবে বলা যায় নিয়মিত আলু খেলে ওজন বাড়বে। আলু তরকারি তে দিয়ে ভাজি করে গ্রিল করে ভালো মানের তেল দিয়ে ফ্রেন্স ফ্রাই করে নিয়মিত খেতে পারেন।

আরো খাবেন বাদাম: প্রতিদিন সকালে উঠে ৬-৭ টা কাজু বাদাম ও কিশমিশ খালি পেটে খেয়ে নেন, এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হয় যদি আগের দিন রাতে এক গ্লাস পানিতে কাজু এবং কিসমিস ভিজিয়ে রেখে পরের দিন সকালে ওই পানি খাওয়া যায়।

খেয়ে নিন ফ্যান ভাত: ফ্যান ভাত অথবা যাকে আমরা ভাতের মার বলি তা খাওয়া যেতে পারে। ফ্যান ভাত সাহায্য করে মোটা হতে এবং ওজন বৃদ্ধি করতে। সাধারণত ভাতের ফ্যানে বেশিরভাগ পুষ্টি ও ফ্যাট থাকে যা ফ্যান ফেলে দেয়ার সাথে সাথে বেরিয়ে যায়। আপনি এই ভাতের ফ্যান নিয়মিত এক মাস খেলে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন লক্ষ্য করবেন।

মধুর ‌ব্যবহার: চেষ্টা করুন প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস ঘন দুধে এক চামচ মধু মিশিয়ে খেতে। ওজন বাড়ানোর জন্য মধু খুবই কার্যকরী, এটি নিয়মিত রাতে খেলে ওজন বাড়তে বাধ্য।

আরো খাবেন সবজি এবং ফল: প্রচুর শাকসবজি ও ফল খান! ভাবছেন এগুলো তো ওজন কমানোর জন্য খাওয়া হয়? ওজন বাড়াতে ও কিন্তু আপনাকে সাহায্য করবে এই ফল আর সবজি। এমনকি অনেক ফল আর সবজি আছে যারা উচ্চ ক্যালরিযুক্ত। যেমন আম, কাঁঠাল, লিচু, কলা, পাকা পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলু, কাঁচা কলা ইত্যাদি। ফল ও সবজি খেলে ওজন বেড়ে যাবে।

মোটা হতে চাই! কোন বিশেষ খাবার গুলো খাদ্যতালিকায় রাখবো?

মোটা হতে চাই

আপনার নিয়মিত খাবারের পাশাপাশি অবশ্যই কিছু উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার যোগ করতে হবে খাদ্যতালিকায় না হলে ওজন কেন বাড়বে! উচ্চচাপ এর সমস্যা না থাকলে এই খাবারগুলো খেতে পারেন অনায়াসেই। যেমন কি মাখন, ডিম, চিজ, পানির, কোমল পানীয়, গরু-খাসির মাংস, আলু ভাজা, মিষ্টি জাতীয় খাবার, চকলেট মেওনিস ইত্যাদি।

দিনে কতবার খাবেন?

আপনি যদি ওজন বাড়াতে চান তাহলে দিনে পাঁচ থেকে সাত বার পরিমিত পরিমাণে খাবার খান। আমরা সচরাচর তিনবার খেয়ে থাকি আপনি দিনে ৬ বার খান কিন্তু পরিমাণ কে নির্দিষ্ট করে। এতে করে আপনার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হবে না। কলা, আম ইত্যাদি ফল বেশি করে খাবেন পাশাপাশি অন্যান্য ক্যালরিযুক্ত খাবার গুলো।

মনে রাখবেন আপনি যত পরিমাণে জাঙ্কফুড খাবেন আপনার দেহ থেকে তার চেয়েও বেশি পরিমাণে প্রোটিন বেরিয়ে যাবে।

মনে রাখবেন আপনি যত পরিমাণে জাঙ্কফুড খাবেন আপনার দেহ থেকে তার চেয়েও বেশি পরিমাণে প্রোটিন বেরিয়ে যাবে।

তাই ভাজা বাদ দিয়ে বাদাম, পরিমিত মিষ্টি’ ঘরে তৈরি রসায়ন জাতীয় খাবার খেয়ে যান।

কোন নিয়মে খাবার খাবেন?

মোটা হতে চাই

আপনি খাবার খাচ্ছেন কিন্তু কোন নিয়ম মেনে খাচ্ছেন না এতে করে আপনার কোনো কাজই হবে না বরং হিতে বিপরীত হবে। আপনার শরীরের ওজন কোনোভাবেই বারবে না। আপনি যদি নিয়ম করে খাবার তালিকা তৈরি করে খেয়ে থাকেন তাহলে আপনার ওজন বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। তালিকা তৈরি করুন এবং সেটি পালন করুন ঘড়ি ধরে। মোটামুটি ভাবে চার সপ্তাহের মধ্যে একটি ভালো ইতিবাচক ফলাফল পেয়ে যাবেন।

ওজন বাড়ে খাবারগুলো খাবেন এবং পর্যাপ্ত ঘুমাবেন। এই নিয়মে এবং এই খাবারগুলো যদি আপনি নিয়মিত খেয়ে থাকেন রুটিনমাফিক তাহলে আপনি দুই বা চার সপ্তাহের মধ্যে আপনার ওজন বেড়ে যাবে।

তারপরও যদি আপনার শরীরের ওজন না বেরে থাকে তাহলে আপনার শরীরে অন্য কোন সমস্যা রয়েছে, তাই এজন্য আপনি ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

https://www.youtube.com/watch?v=fmoUHSGS1Fs
Author: হেলথ টিপস ডেক্স

"Gslht" whose complete form is "Good Solution Line Health Tips" We all want our body to be good; we want our body and mind to be fresh all the time. If the body is good, everyone's mind becomes good.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *