ধূমপান ত্যাগ করার কার্যকারী উপায় | An effective way to quit smoking

ধূমপান ত্যাগ
ad

স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর একটি অভ্যাস হলো ধূমপান। কিন্তু এই হানিকারক অভ্যাস দূর করা টা বেশিরভাগ মানুষের জন্য ভীষণ কষ্টকর হয়ে থাকে। ধূমপান ত্যাগ করতে গেলে সবচাইতে বেশি কষ্টের হলো “Withdrawal Sympto” এতে অনেক খানিক মানসিক এবং শারীরিক কষ্টের মধ্য দিয়ে যায় ধূমপানে আসক্ত ব্যক্তি।

মানসিক কষ্ট গুলো হল-

  • দুশ্চিন্তা
  • অস্থিরতা
  • মেজাজ খারাপ হওয়া
  • নিদ্রাহীনতা
  • মাথাব্যথা
  • দুর্বল মনোযোগ
  • বিষন্নতা
  • সামাজিক বিচ্ছিন্নতা।

শারীরিক কষ্ট গুলো হল-

  • অতিরিক্ত ঘাম
  • হৃদস্পন্দন
  • পেশিতে টান পড়া
  • ক্বফ আটকে যাওয়া
  • শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা হওয়া
  • গা শিউরে ওঠা
  • বমি বমি ভাব
  • পেট খারাপ হওয়া।

কিন্তু দশটি কার্যকরী এবং বৈজ্ঞানিক সিস্টেম রয়েছে যার মাধ্যমে ধূমপান এট্রাক্টিভ হওয়া অভ্যাসগুলো ত্যাগ করা যেতে পারে। মনে রাখবেন নিজের ইচ্ছা শক্তি বড় শক্তি, আপনি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে কোন কাজ না করেন সেটা আপনাকে জোর করে কোন ভাবেই করানো যাবে না। সুতরাং আপনার যদি মন মানসিকতা থাকে ধূমপান ত্যাগ করার সেক্ষেত্রে আপনি নিজের ইচ্ছা শক্তি কে আরো শক্তিশালী করুন।

ধূমপানের কারণে শরীরে তৈরি হয় নিকোটিন দুর্বলতা। আর তাই ধূমপান হঠাৎ করে ছেড়ে দিলে শরীরের নিকোটিন থেকে বঞ্চিত হয় এবং দেখা যায় বিভিন্ন লক্ষণ। শরীরে যদি অন্য কোন উপায়ে নিকোটিনের সরবরাহ দেওয়া যায় তাহলে ধূমপানের উপর নির্ভরশীলতা কমে আসবে। এ জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে নিকোটিন ব্যাস অথবা নিকোটিন চুইংগাম।

নির্দিষ্ট দিন ঠিক করে ধূমপান ত্যাগ করুন।

ধূমপান ত্যাগ

মনে করুন আপনার একটা পরীক্ষা আছে তাহলে আপনি অবশ্যই সেই পরীক্ষার আগে থেকেই প্রিপারেশন করবেন। ঠিক সেভাবেই একটা দিন ঠিক করুন যার মাঝে আপনি ধূমপান ত্যাগ করতে চান। তাহলে আপনার মাঝে একটা তাগিদ চলে আসবে তবে দিনটি বেশি কাছে করবেন না, ঠিক করে রাখুন ৬ মাস কিংবা এক বছর পরে যে কোন একদিন থেকে ধূমপান ত্যাগ করে দিব।

কখন কখন ধূমপান করছেন তা লিখে রাখুন।

একটা নোট বই নিন যতবার ধূমপান করছেন ততবার লিখে রাখুন। এরপর সেই লেখাটা দেখলেই নিজের মধ্যে একটা মানুষিকতা চলে আসবে নিজের মধ্যে একটা রাগ জন্ম নিবে মনে হবে এতবার ধূমপান করলাম, তখনি আপনার মধ্যে একটা ভালো সিদ্ধান্ত আসবে যার ফলে আপনাকে আরো সহযোগী করবে এটা ত্যাগ করতে। শুধু তাই নয় কোন কোন কাজের পরে আপনি ধূমপান করছেন সেটাও নোট করে রাখুন।


রাতে ঘুম হয় না? রাতে মাত্র ১ মিনিটেই ঘুমানোর সহজ পদ্ধতি জানুন

কাউন্সেলিং করুন।

কাউন্সেলিং শুধুমাত্র মানসিক সমস্যার জন্যই নয়, বরং এমন ক্ষতি করে সব অভ্যাসের দূর করার ক্ষেত্রেও কাজে আসে।

প্রিয়জনের সহযোগিতা।

ধূমপান ত্যাগ

শুধুমাত্র পেশাদার সাহায্য নয়, আপনার কাছের মানুষগুলো কিন্তু এই অভ্যাস ত্যাগ করতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে অনেক বেশি। আপনি তাদের সাহায্য সহযোগিতা নিন। তারা আপনার কাছে থেকে আপনাকে অনেক উপকার করতে পারবে।

ফ্রি হ্যান্ড ব্যায়াম।

ধূমপান ছাড়া থাকতে থাকতে যখন খুব ধূমপান করতে অথবা স্মোকিং করতে ইচ্ছে করবে এবং শারীরিক কষ্ট হবে তখন ৫ থেকে ১০ মিনিট ব্যায়াম করুন। এতে আপনার মনোযোগ অন্য দিকে চলে আসবে। যেকোন নেশায় একটা টিপ হলে কিংবা মন থেকে নেশা উঠে আসলে তখন যে কোনো ভারী কাজ করুন এতে করে আপনার নেশা কেটে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি থাকে।

ওয়েট লিফটিং।

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে শুধু খালি হাতে ব্যায়াম নয় ছোটখাটো ভারোত্তোলন ধূমপান ছেড়ে দেয়ার ক্ষেত্রে ভীষণ সহযোগী। এজন্য আপনার রুম কিংবা টেবিলে রাখতে পারেন মজার মজার কিছু দৃশ্য। যেমন কোন সিনারি, কম্পিউটার ইত্যাদি।

টেক্সট মেসেজিং।

এটা আমাদের দেশের জন্য খুব একটা কার্যকরী নয় তবে পশ্চিমা দেশে এমন সুবিধাটা খুবই কার্যকরী, যারা স্মোকিং করতে আগ্রহী কিংবা ত্যাগ করতে ইচ্ছুক তাদের ফোনে একটা নির্দিষ্ট সময় পরপর স্মোকিং ত্যাগ করার উপকারিতা এবং স্মোকিং করার অপকারিতা সম্বলিত টেক্সট মেসেজ আসবে, তবে এই কাজের জন্য আপনি যেটা করতে পারেন তা হচ্ছে পরিচিত মানুষদের বলতে পারেন আপনাকে নিয়মিত এমন মেসেজ গুলো পাঠাতে। এতে আপনার মনে সব সময় ধূমপান থেকে দূরে থাকার তাগিদ থাকবে।

আরো হেলথ নিউজ দেখুন!

স্মার্ট ফোন অ্যাপ ব্যবহার করা।

বর্তমান সমাজে অনেক অনেক রয়েছেন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী এবং এগুলোতে ব্যবহারযোগ্য অনেক সফটওয়্যার রয়েছে যা ধূমপান ত্যাগ করতে আপনাকে অনেক বেশি সহযোগিতা করবে। এমন কোন একটা সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে পারেন যার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন টিপস পেতে পারেন ধূমপান ত্যাগ করার জন্য।

ই-সিগারেট ব্যবহার করুন।

এতকিছুর পরেও আপনার ঠোঁটের মাঝে যদি একটি এন্টাস্টিক এর অভাব অনুভব করেন তাহলে ই সিক্রেট ব্যবহার করুন। এটা অনেকেই ধূমপান ত্যাগ করতে সাহায্য করেছে।

তো বন্ধুগণ আমার এই আর্টিকেলটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার মতামত জানাতে পারেন আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করতে পারেন কিংবা আপনার কোন বন্ধু যদি স্মোকিং এর প্রতি অ্যাট্রাক্টিভ হয়ে থাকে তাকেও এই আর্টিকেলটি দেখাতে পারেন কিংবা তার সাথে শেয়ার করতে পারেন।

https://www.youtube.com/watch?v=CP5PJ_jFx00
Author: হেলথ টিপস ডেক্স

"Gslht" whose complete form is "Good Solution Line Health Tips" We all want our body to be good; we want our body and mind to be fresh all the time. If the body is good, everyone's mind becomes good.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *